a
Sorry, no posts matched your criteria.
Image Alt
 • ত্বকের যত্ন  • চেহারা  • পুরুষদের ত্বক নারীদের চেয়ে কি আসলেই আলাদা?

পুরুষদের ত্বক নারীদের চেয়ে কি আসলেই আলাদা?

পুরুষ ও নারীদের ত্বকের মধ্যে সবচেয়ে স্পষ্ট পার্থক্য হচ্ছে পুরুষদের মুখে দাঁড়ি গজায়। তবে খালি চোখে দেখা যায় না, এমন কিছু পার্থক্যও আছে। এই লেখায় সেরকম কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে।

ত্বকের পুরুত্ব

সাধারণত, ছেলেদের ত্বক মেয়েদের চেয়ে ২৫ শতাংশ পুরু। তবে ছেলেদের ত্বক একটা নির্দিষ্ট হারে বয়সের সঙ্গে সঙ্গে পুরু হতে থাকে। অন্য দিকে মেয়েদের ত্বক মেনোপজের আগ পর্যন্ত একই রকম থাকে,এরপর হুট করে পুরু হওয়া শুরু করে। সেজন্য পুরু ও পাতলা ত্বকের জন্য আলাদা ধরনের পণ্য ব্যবহার করা উচিত।

ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া

ছেলেদের ত্বক সাধারণত মেয়েদের চেয়ে ধীরে বুড়িয়ে যায়। বলা হয়, একই বয়সী পুরুষের চেয়ে একজন নারীর ত্বক ১৫ বছরের ছোট। এজন্য মেয়েদের এমন পণ্য বেশি ব্যবহার করতে হয় যেটা তাদের বয়স হওয়াটা ধীর করে দেয়। সেজন্য ছেলেদের এসব পণ্য কম ব্যবহার করতে হয়।

স্কিন টেক্সচার
ছেলেদের ত্বক মেয়েদের চেয়ে বেশি শক্ত ও রুক্ষ। চামড়ার বাইরের দিকের স্তর (স্ট্র্যানাম করনেয়াম) ছেলেদের ত্বককে অনেক বেশি শক্ত ও পুরু করে। সেজন্য এই স্তরটা বেশি মসৃণ করতে পারে এমন পণ্য ব্যবহার করে ছেলেরা।

পিম্পল প্রবলেম

ছেলেদের ত্বক সারাজীবন একই হারে সেবাম উৎপাদন করে যায় ও বয়সের সঙ্গে সঙ্গে এটা কমে না। মেয়েদের ক্ষেত্রে এমন হয় না। ছেলেদের ত্বকে ব্রন, ফাঁটা, কালো দাগ হয়ে যাওয়া, ঘাম জমা এসব বেশি হতে পারে। তবে ঠিক ঔষধ ও স্বাস্থ্যপণ্য ব্যবহার করলে এসব সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া যায়।

হাইড্রেশন

ছেলেদের ঘামের প্রবণতা বেশি থাকে, এজন্য ছেলেরা মেয়েদের দুই গুণ বেশি ঘামে। এজন্য ছেলেদের শরীরের তাপমাত্রাও মেয়েদের তুলনায় বেশি। তবে ছেলেদের শরীর মেয়েদের তুলনায় তাড়াতাড়ি হাইড্রেটেড হয়। সেজন্য বেশি করে পানি পান করুন।

ছেলে ও মেয়েদের শরীরে পার্থক্যের জন্য এই কারণগুলো দায়ী। সেজন্য ছেলে ও মেয়েদের ত্বকের যত্নের জন্য ভিন্ন ধরনের জিনিস ব্যবহার করা উচিত। সঠিক পণ্য ব্যবহার করলে সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর ত্বক নিশ্চিত করা সম্ভব।

POST A COMMENT