a
Sorry, no posts matched your criteria.
Image Alt
 • ত্বকের যত্ন  • ত্বকের ব্রণকে ‘না’ বলুন সহজেই

ত্বকের ব্রণকে ‘না’ বলুন সহজেই

গরমে আপনার শরীরে ঘাম জমতে শুরু করলে অনেক সময় সেসবের জন্য পিঠের ত্বকে ব্রণ হয়, যার ফলে ত্বকে দাগ হয়ে যায়। মনে রাখবেন, ‘ব্যাক অ্যাকনের’ জন্য চিকিৎসার আগে প্রতিরোধ করাই ভালো। কীভাবে এই ব্রণ দূর করবেন সেজন্য কিছু পরামর্শ মেনে চলতে পারেন।

এক্সফোলিয়েট করুন

পিঠের ব্রণ দূর করার সবচেয়ে ভালো উপায় সপ্তাহে দুই বা তিন দিন স্যালিসাইলিক এসিড দিয়ে একটা বডি স্ক্রাব ব্যবহার করা। ত্বকের মৃত কোষ ও জমে থাকা পোরস এতে দূর হয়। পিঠের ত্বক যেহেতু মুখের চেয়ে অনেক বেশি পুরু, এক্সফোলিয়েশন বা ঘষে ঘষে দূর করার বিকল্প নেই। তবে সেটা যাতে বেশি না করে ফেলেন সেদিকে খেয়াল রাখুন।

চুল খুশকিমুক্ত রাখুন

অনেক সময় আপনার চুল থেকে যে খুশকি হয় সেটা আপনার পিঠে এসে পড়ে এবং দাগ তৈরি করে। সেজন্য নিয়মিত ভালো খুশকিনাশক শ্যাম্পু ব্যবহার করা উচিত। তাহলে আপনার চুল পরিষ্কার থাকবে এবং পিঠে দাগও হবে না।

পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন
কাপড় বদলানোর অভ্যাসটা নিয়মিত করুন, সঙ্গে আপনার তোয়ালেও। তাহলে আপনার ত্বকের আশেপাশে ঘোরাঘুরি করতে থাকা ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করতে পারবে না। ওয়ার্ক আউটের পর গোসল করে ফেলা বা ভালোমতো ধুয়ে ফেলা উচিত, তাহলে কোনো ঘাম জমে থাকবে না। বিছানার চাদরটা নিয়মিত বদলানোর অভ্যাস করুন। অনেক সময় শরীরের মৃত কোষ বা তেল এই চাদর থেকেই জমে জমে ত্বকে গিয়ে দানা বাঁধে।

ডায়েট ঠিক করুন

সাদা রুটি আর আলুতে গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বেশি, সুস্থ ত্বকের জন্য এগুলো খাওয়া কমিয়ে ফেলুন। অন্যদিকে আরও বেশি ফল, সবজি আর আঁশযুক্ত খাবার খান। এগুলো ত্বকের জন্য অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামাটরি হিসেবে কাজ করে। খাবার তালিকায় বেশি করে ওমেগা-৩ রাখাটাও ভালো একটা সমাধান হতে পারে।

বাথসল্টের গোসল নিন

ইপসম লবণ আপনার পেশীকে আরাম দেয়, ত্বকের জন্যও ভালো। ইপসম লবণ ব্যবহার করলে ত্বকের লাল দাগ বা ব্রণও কমে। আপনার গোসল করার পানিতে এক কাপ ইপসম লবণ বা অর্ধেক কাপ ফ্লেভারহীন, সাদা ওটস মেশান। এরপর ২০-৩০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। এতে ত্বক ফেটে যাওয়ার পরিমাণ অনেকটাই কমে যাবে।

ত্বকে ব্রণ আর দাগ কেউই পছন্দ করে না। বিশেষ করে পিঠে হলে তো সেটা আরও বেশি হতাশাজনক। এই অভ্যাসগুলো মেনে চলতে পারলে ত্বকের দাগ বা ব্রণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে থাকবে। কে জানে, আপনার পিঠও হয়তো বাঁচবে!

POST A COMMENT