a
Sorry, no posts matched your criteria.
Image Alt
 • দাঁড়ি  • ২০২০ সালের ট্রেন্ডিং বিয়ার্ডস্টাইল

২০২০ সালের ট্রেন্ডিং বিয়ার্ডস্টাইল

দাড়ির স্টাইল এখন বেশ ট্রেন্ডিং, ফ্যাশন হিসেবেও এটা নতুন করে ফিরে এসেছে। গবেষণায় তো দেখা গেছে মেয়েরা দাঁড়িওয়ালা পুরুষই বেশি পছন্দ করে! কিন্তু এত এত সব দাড়ির স্টাইল, এর মধ্যে থেকে আপনার ব্যক্তিত্ব আর মুখের শেপের সঙ্গে মিল রেখে বেছে নেবেন কীভাবে? এখানে ২০২০ সালের জনপ্রিয় কিছু দাড়ির ছাটের বর্ণনা দেওয়া হলো।

দ্য বালবো

এই মুহূর্তে বালবো বেশ জনপ্রিয় একটা দাড়ির ছাট। হলিউড সুপারস্টার রবার্ট ডাউনি জুনিয়র এই বালবো লুকে অনেক দিন ধরেই জনপ্রিয়, এটি তার সঙ্গে বেশ মানিয়েও যায়। আগে আপনাকে মুখভর্তি দাড়ি থাকতে হবে। এরপর আপনি এই স্টাইলে দাড়ি ছাটতে পারবেন। প্রথম চার সপ্তাহ পর্যন্ত আপনি দাড়ি ফেলবেন না। আপনাকে গোঁফও রাখতে হবে একই সঙ্গে। আর মুখের একপাশ থেকে দাড়ি ছাঁটতে ইলেক্ট্রিক বা ডিসপোজেবল রেজর লাগবে।

ব্যান্ডহোলজ

ব্রেডব্যান্ডের ফাউন্ডার এরিক ব্যান্ডহলজ এই দাড়ির স্টাইলটা জনপ্রিয় করেছিলেন। ব্যান্ডহোলজ গজানোর জন্য আপনার বেশ ধৈর্য লাগবে। তবে এই মুহূর্তে এটা সবচেয়ে কুলেস্ট ছাটগুলোর একটি। শুরু করার সময় আপনার প্রথম চার মাস একটু বেশি প্যাচি লাগতে পারে। এই ছাটের জন্য বেশ কিছুদিন আপনার কোনো কাঁচি বা রেজরও লাগবে না। আগে আপনার যত বেশি সম্ভব দাড়ি গজাতে নিতে হবে। সাত মাস পর সেটাকে আপনি শেপ দিতে পারবেন, আপনার নিজের পছন্দ অনুযায়ী।

সার্কেল বিয়ার্ড

এটাকে বলা হয় স্ট্যান্ডার্ড বিয়ার্ড। এটা আসলে রাউন্ড গোটি আর গোঁফ মিলে একটা স্টাইল। যারা দাড়িটা ছোট করে শেপে রাখতে চান এবং নিজেদের প্রেজেন্টেবল করতে চান তাদের জন্য এটা বেশ ভালো। এটার জন্য আপনাকে কিছুদিন শেভ না করে রেখে দিতে হবে। আপনি কোনো বারবারের সাহায্যও নিতে পারেন, কারণ সার্কেল শেপ করাটা সহজ নয়। একবার শেপে নিয়ে আসতে পারলে এরপর আপনি নিজেই সেটা মেইন্টেইন করতে পারবেন।

ফুল বিয়ার্ড
ফুল বিয়ার্ড এমন একটা ব্যাপার, যেটা সবচেয়ে বেশি পুরুষোচিত। আর অবশ্যই এটা আপনি মিস করতে চাইবেন না। একটি ওয়েল গ্রুমড ফুল বিয়ার্ড ডায়ামন্ড বা ট্রায়াঙ্গল শেপের সাথেও মানিয়ে যায়। আর ফুল বিয়ার্ড অনেকটা জিনের ওপরও নির্ভর করে। আপনাকে আগে চুল এমন পরিমাণে গজাতে হবে যেন মিডিয়াম স্টাবল হয়। এরপর রেজর দিয়ে সেটা শেপে আনতে হবে। ছয় সপ্তাহ শেভ না করলেই এই বিয়ার্ড আপনি পেতে পারেন।

ভ্যান ডাইক

ভ্যান ডাইক বিয়ার্ড ১৭শ শতাব্দীতে অ্যান্থনি ভ্যান ডাইক নামের একজন ফ্লেমিশ পেইন্টারের নাম থেকে এসেছে। এটা গোঁফ আর গোটির একটা মিশ্রণ, আর আছে প্রিসিশন স্টাইলিং। এটার জন্যও আপনার দাড়ি বেশ বড় হতে হবে। এরপর ভালো একটা শেভার দিয়ে আস্তে আস্তে শেপে আনতে হবে। আপনার চিবুক, ঘাড় আর দুই পাশের দাড়ি ফেলে দিতে হবে। গোঁফ ফেলবেন না। থুতনিকে এমনভাবে কাটবেন যেন একটা উলটো টি এর মতো লাগে। থুতনিতে দুই ইঞ্চি পর্যন্ত দাড়ি গজাতে দিন। এরপর কাঙ্খিত ভি শেপে আনার জন্য চেষ্টা করুন। আপনাকে দেখতে পিয়ার্স ব্রসন্যানের মতোই লাগবে।

এই ছাটগুলো থেকে আপনার মুখের শেপের ওপর নির্ভর করে যে কোনো একটি বেছে নিতে পারেন।

POST A COMMENT